সূরাঃ সফফ

অবতীর্ণঃ মদীনা

আয়াতঃ ০১⇒ স্বর্গে যাহা কিছু আছে ও পৃথিবীতে যাহা কিছু আছে (সকলেই) পরমেশ্বরকে স্তব করিয়া থাকে, এবং তিনি পরাক্রান্ত বিজ্ঞাতা।

আয়াতঃ ০২⇒ হে বিশ্বাসিগণ, যাহা তোমরা কর না তাহা কেন বলিয়া থাক? তোমরা যাহা কর না তাহা তোমাদের বলা ঈশ্বরের নিকটে মহাবিরক্তিকর।

আয়াতঃ ০৩⇒ নিশ্চয় ঈশ্বর তাঁহার পথে শ্রেণীবদ্ধরুপে যাহারা সংগ্রাম করে তাহাদিগকে প্রেম করিয়া থাকেন, তাহারা পরস্পর যেন দৃঢ়বদ্ধ অট্টালিকা।

আয়াতঃ ০৪⇒ এবং (স্মরণ কর) যখন মুসা আপন দলকে বলিল, “হে আমার সম্প্রদায়, তোমরা আমাকে কেন পীড়ন করিতেছ? এবং বস্তুতঃ তোমরা জানিতেছ যে, একান্তই আমি তোমাদের প্রতি ঈশ্বর কর্তৃক প্রেরিত;” পরে যখন তাহারা কুটিলতা করিল, তখন ঈশ্বর তাহাদের অন্তঃকরণ অসরল করিলেন, এবং ঈশ্বর দুর্বৃত্তদলকে পথ প্রদর্শন করেন না।

আয়াতঃ ০৫⇒ এবং (স্মরণ কর) যখন মরয়মের পুত্র ঈসা বলিল, “হে বনি-এস্রায়িল, নিশ্চয় আমি আমার পূর্ববর্তী তওরাত গ্রন্থে যাহা ছিল তাহার প্রমাণকারকরুপে ও আমার পরে যে প্রেরিতপুরুষ যাহার নাম আহমদ আগমন করিবেন তাহার সুসংবাদদাতারুপে ঈশ্বর কর্তৃক তোমাদের প্রতি প্রেরিত;” অনন্তর যখন তাহাদের নিকটে সে বহু অলৌকিকতাসহ আগমন করিল, তখন তাহারা বলিল, “ইহা স্পষ্ট ইন্দ্রজাল”।

আয়াতঃ ০৬⇒ এবং যে ব্যক্তি ঈশ্বরের প্রতি অসত্য রচনা করিয়াছে এ দিকে সে এসলাম ধর্মের দিকে আহূত হইতেছে তাহা অপেক্ষা কে অধিক অত্যাচারী? এবং পরমেশ্বর অত্যাচারী দলকে পথ প্রদর্শন করেন না।

আয়াতঃ ০৭⇒ তাহারা আপন মুখে ঐশ্বরিক জ্যোতিকে নির্বাণ করিতে চাহে, এবং যদিচ ধর্মদ্রোহীগণ বিরক্ত হয় তথাপি পরমেশ্বর স্বীয় জ্যোতি পূর্ণ করিবেন।

আয়াতঃ ০৮⇒ তিনিই যিনি আপন প্রেরিতপুরুষকে ধর্মালোক ও সত্যধর্মসহ পাঠাইয়াছেন, অংশীবাদীগণ যদিচ বিরক্ত হয় তথাপি সমগ্র ধর্মের উপর তাহাকে জয়যুক্ত করিতে (প্রেরণ করিয়াছেন)।

আয়াতঃ ০৯⇒ যাহা ক্লেশকারী শাস্তি হইতে তোমাদিগকে উদ্ধার করিবে, হে বিশ্বাসীগণ, সেই বাণিজ্যের প্রতি আমি তোমাদিগকে কি পথ প্রদর্শন করিব?

আয়াতঃ ১০⇒ তোমরা ঈশ্বরের ও তাঁহার প্রেরিতপুরুষের প্রতি বিশ্বাস স্থাপন কর, এবং ঈশ্বরের পথে আপন ধনপুঞ্জ ও আপন জীবন দ্বারা জেহাদ কর, যদি তোমরা বুঝিয়া থাক তবে তোমাদের জন্য ইহাই কল্যাণ।

আয়াতঃ ১১⇒ তিনি তোমাদের জন্য তোমাদের পাপপুঞ্জ ক্ষমা করিবেন, এবং যাহার নিম্ন দিয়া পয়ঃপ্রনালী সকল প্রবাহিত হইতেছে সেই স্বর্গোদ্যানে এবং নিত্য স্বর্গে বিশুদ্ধ আলয় সকলে তোমাদিগকে লইয়া যাইবেন, ইহাই মহা মনোরথ সিদ্ধি।

আয়াতঃ ১২⇒ এবং অন্য (সম্পদ) যাহা তোমরা ভালবাস (প্রদান করিবেন) ঈশ্বর হইতেই আনুকূল্য ও সন্নিহিত বিজয়, এবং তুমি বিশ্বাসীবৃন্দকে সুসংবাদ দান কর।

আয়াতঃ ১৩+১৪⇒ হে বিশ্বাসীগণ, তোমরা ঈশ্বরের আনুকূল্যদাতা হও, যথা – মরয়মের নন্দন ঈসা ধর্মবন্ধুদিগকে বলিয়াছিল,”কে ঈশ্বরের পক্ষে আমার সাহায্যকারী?” ধর্মবন্ধুগণ উত্তর দান করিয়াছিল, “আমরা ঈশ্বরের সাহায্যকারী”, অনন্তর এস্রায়িল বংশীয় এক দল বিশ্বাস স্থাপন করিল, এবং এক দল ধর্মবিরোধী হইল, অবশেষে আমি বিশ্বাসীদিগকে তাহাদের শত্রুর উপর সাহায্য দান করিলাম, পরে তাহারা বিজয়ী হইল।