ভার্চুয়াল বক্সে কালি লিনাক্স সেটাপ

পূর্বের নিয়মানুসারে ভার্চুয়াল বক্স ইন্সটল এবং কালি লিনাক্সের জন্য সেটাপ করার পর, উপরের Start বাটনে ক্লিক করুন।

 

১. এখন নিচের পিকচারের মত Select start-up disk নামের একটি উইন্ডো আসবে। যার নিচে অটোভাবে Host Drive ‘G’ সিলেক্ট হয়ে থাকে, যা এ্যারো চিহ্নের মাধ্যমে চেঞ্জ করে Kali Linux সিলেক্ট করুন এবং Start বাটনে ক্লিক করুন।

 

২. কালি লিনাক্স স্টার্ট হলে কিবোর্ডের মাধ্যমে Graphical Install সিলেক্ট করে কিবোর্ডের এন্টার বাটনে ক্লিক করুন।

 

৩. Select a Language উইন্ডো থেকে English সিলেক্ট করে Continue-তে ক্লিক ক্লিক করুন।

 

৪. Select a Location উইন্ডো থেকে India সিলেক্ট করতে হবে, যেহেতু অপশনগুলোতে Bangladesh নেই, এরপর Continue-তে ক্লিক করুন। আপনি ইচ্ছা করলে যে কোন দেশ সিলেক্ট করতে পারেন।

 

৫. Configure the Keyboard উইন্ডো থেকে American English সিলেক্ট করে Continue-তে ক্লিক করুন।

 

৬. Configure the Network উইন্ডো থেকে Kali সিলেক্ট রেখে Continue বাটনে ক্লিক করুন।

 

৭. আবারো Configure the Network উইন্ডো আসলে কোন কিছু না করেই Continue বাটনে ক্লিক করুন।

 

৮. Setup users and passwords উইন্ডোতে একটি ইউজার নাম টাইপ করে Continue বাটনে ক্লিক করুন। তবে যে ইউজার নাম ব্যবহার করবেন, তা অবশ্যই এক শব্দের সিঙ্গেল নাম হতে হবে, যেমন milon, এবং তা অবশ্যই মনে রাখতে হবে, কেননা পরবর্তীতে তা কাজে লাগবে।

 

৯. পুনরায় Setup users and passwords উইন্ডো আসলে পূর্বের ইউজার নাম ব্যবহার করুন, তবে ইউজার নামের ক্ষেত্রে দুইটি শব্দের নাম ব্যবহার করা যাবে না। নামটি সিঙ্গেল হওয়া বাধ্যতামূলক। যদি আপনার পূর্বের ব্যবহার করা নাম অটোভাবে সিলেক্ট করাই থাকে, তাহলে কোন কিছু পরিবর্তন না করে পুনরায় Continue বাটনে ক্লিক করুন।

 

১০. এবার উপরে ও নিচের ফাঁকা স্থানে আপনার লিনাক্সের জন্য পাসওয়ার্ড ব্যবহার করুন। তবে পাসওয়ার্ড যেন নূন্যতম সংখ্যায় হয়। এর কম হলে পাসওয়ার্ড সেটাপ হবে না।

 

১১. এবার Configure the cloock নামের একটি উইন্ডো ওপেন হলে, Eastern সিলেক্ট করে Continue-তে ক্লিক করুন। আপনি চাইলে অন্য অপশনও সিলেক্ট করতে পারেন।

 

১২. এবার Partition disks উইন্ডোতে Guided-use Entire disks সিলেক্ট করে Continue ক্লিক করুন।

 

১৩. আবারো Partition disks উইন্ডো আসলে কোন কিছু পরিবর্তন না করেই Continue ক্লিক করুন।

 

১৪. এবার All files in one partition ক্লিক করে Continue ক্লিক করুন।

 

১৫. এরপর নিচে Finish Pertitioning and write changes to disk ক্লিক করে Contitune ক্লিক করুন।

 

১৬. এরপর Yes সিলেক্ট করে Continue ক্লিক করুন।

 

১৭. এবার Softwear উইন্ডোতে কোন কিছু পরিবর্তন না করেই Continue ক্লিক করুন। এই প্রক্রিয়া শেষ হতে বেশ কিছু সময় লাগবে। কতটা সময় লাগবে, তা নির্ভর করবে আপনার কম্পিউটারের স্পীডের উপর। সাধারণত ১৫ মিনিট থেকে ৩০ মিনিট পর্যন্ত সময় লাগতে পারে।

 

১৮. এরপর Install the GRUB boot loader উইন্ডোতে Yes সিলেক্ট করে Continue ক্লিক করুন।

 

১৯. এবার /dev/sda সিলেক্ট করে Continue ক্লিক করুন।

 

২০. এবার Finish the installation উইন্ডোতে কোন কিছু পরিবর্তন না করে Continue ক্লিক করুন।

 

২১. এবার কিছুক্ষন অপেক্ষা করার পর ইন্সটল প্রসেস সমাপ্ত হয়ে যাবে এবং লিনাক্স ওপেন হলে পূর্বে ব্যবহৃত ইউজার নেম এবং পাসওয়ার্ড প্রদান করে এন্টার করলেই লিনাক্স সফলভাবে রান হয়ে যাবে। এবার আপনার User Name এবং Password দিয়ে এন্টার করুন।

এখন নিচের পিকচারের মত আপনার Kali Linux ওপেন হবে।

 

২২. লিনাক্স রান হলেই প্রথমে Linux-কে রিস্টাট দিন। এর জন্য Linux-এর টার্মিনাল ওপেন করুন। এবং কমান্ড দিন reboot এবং এন্টার দিন। নিচের পিকচারে উপরের এ্যারো চিহ্নিত কালো সিম্বলে ক্লিক করলেই টার্মিনাল ওপেন হয়ে যাবে। এবার Linux রিস্টার্ট হয়ে নতুন করে ওপেন হবে। পুনরায় আপনার User Name এবং Password প্রদান করে এন্টার দিন।

 

২৩। এক্ষনে আপনার প্রথম কাজ হবে আপনার Linux সিস্টেমকে আপডেট এবং আপগ্রেড করা। এরজন্য লিনাক্সের টার্মিনাল ওপেন করুন এবং খেয়াল করুন নিচের পিকচার। টারমিনালের শুরুতেই আপনার User Name দেখাচ্ছে, পিকচারে যেমন সবুজ তীর চিহ্ন দিয়ে বুঝানো হয়েছে, যা আপনি লিনাক্স ইন্সটল করার সময় দিয়েছিলেন। অর্থাৎ আপনি বর্তমানে লিনাক্সের লোকাল ইউজার হিসেবে অবস্থান করছেন। আপনি যখন হ্যাকিং শুরু করতে যাবেন, তখন অবশ্যই আপনাকে লিনাক্সের লোকাল ইউজার থেকে root ইউজারে পদার্পণ করতে হবে। সেজন্য নিচের পিকচারের লাল তীর চিহ্নের মত টার্মিনালে কমান্ড দিন sudo so এবং এন্টার প্রেস করুন। এক্ষনে হলুদ তীর চিহ্নের মত আপনার লিনাক্সের পাসওয়ার্ড চাইবে, যা আপনি লিনাক্স সেটাপ করার সময় প্রদান করেছিলেন, তা প্রদান করুন। আপনার প্রদান করা পাসওয়ার্ড আপনি দেখতে পাবেন না, কাজেই পাসওয়ার্ড প্রদান শেষে এন্টার প্রেস করুন। এখন সাদা তীর চিহ্নের মত root kali লেখাকে লাল কালারের দেখতে পাবেন। অর্থাৎ আপনি এখন রুট ইউজারে অবস্থান করছেন।

এবার কমান্ড দিনঃ apt update && apt full-upgrade -y এরপর এন্টার করলেই আপনার লিনাক্স সিস্টেমটি নিচের পিকচারের মত আপডেট এবং আপগ্রেড হওয়া শুরু হয়ে যাবে। বেশ কিছু সময় আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে। তবে কতটা সময় অপেক্ষা করতে হবে, তা নির্ভর করবে আপনার নেট স্পীডের ওপর। ৩০ মিনিট থেকে ১ ঘণ্টা পর্যন্ত সময় লাগতে পারে। আপডেট এবং আপগ্রেড প্রসেস সমাপ্ত না হওয়া পর্যন্ত টার্মিনাল কেটে দেয়া যাবে না এবং কোন কাজও করা উচিত হবে না। যদি কোন কারনে আপডেট এবং আপগ্রেড শেষ হবার পূর্বেই কম্পিউটার বন্ধ হয়ে যায়, তাহলে পুনরায় উক্ত কমান্ডের মাধ্যমে আপডেট করতে হবে। অন্যথায় লিনাক্স ঠিকমত কাজ নাও করতে পারে।

 

২৪. আপডেট এবং আপগ্রেড ১০০% সমাপ্ত হয়ে গেলে Progress প্রক্রিয়া শুরু হলে যদি কোন কোন উইন্ডোর মাধ্যমে কোন পারমিশন চায়, তাহলে কি-বোর্ডের এন্টার বাটন প্রেস করুন। আপডেট এবং আপগ্রেড প্রক্রিয়ার মত প্রগ্রেস প্রক্রিয়াও ১০০% সম্পন্ন হলে, টার্মিনাল ক্লিয়ার করতে কমান্ড দিন clear এবং এন্টার প্রেস করুন।

এরপর git নামের একটি প্যাকেজ ইন্সটল করতে সর্বশেষ কমান্ড দিনঃ apt install git এবং এন্টার করুন। ইন্সটল সম্পন্ন হয়ে গেলে আপনার কাজ শেষ। এবার সিস্টেমটিকে একবার রিস্টার্ট দিয়ে আপনি কাজ শুরু করতে পারেন। সিস্টেমকে দুই ভাবে রিস্টার্ট দেওয়া যায়। অপশনালি রিস্টার্ট দেওয়া যায়, আবার টার্মিনালে কমান্ডের মাধ্যমেও রিস্টার্ট দেওয়া যায়। টার্মিনালে রিস্টার্ট দিতে কমান্ড দিনঃ reboot এবং এন্টার দিন।