নিমন্ত্রণ

জসীম উদ্দিন

ভরা জোসনা যদি দেখতে চাও পূর্নিমা রাতে
আমার বাড়িতে এসোগো সখী একদিন বেড়াতে,
নীল আকাশে উড়ে চলা পঙ্খীরাজ যদি চাও দেখতে
সময় করে এসো সখী আমার বাংলাতে।

নদীতে ভাসা পাল তোলা নৌকা
আর; ঝিলের পাড়ে ফোটা কলমি ফুল
না দেখলে জীবনটা হবে মিছে ভুল,
এসোগো সখী এসো দেখতে
রইলো দাওয়ার আমার দেশেতে।

কূমারী কদম ঠাই দাঁড়িয়ে বাদল দিনে
রংধনু আকাশ রাঙ্গাবে তোমার আগমনে,
কালবৈশাখীর প্রভাতফেরীতে আম কুড়াবো দুজন
এসো সখী দেখে যাও আমার রূপসী ভুবন।

শাপলা পদ্মার নদী দখলে যমুনাতে কতো কান্না
ভাত, মাছ আর দুধ হলে বাঙালীর কিছু চাইনা,
জুঁই শাখে হিজলের ফাঁকে বইয়ে চলে নীরব ঝর্না
এসো সখী এসো তুমি আর দেরি করোনা;
বিশ্বের মাঝে এ দেশ যেন রূপসী ললনা।

সাহিত্যে পাবে হাজারো উপমা
ইতিহাস দিবে সাক্ষী,
আকাশ চুমেছে তাল-সুপারী
তাঁতেই গড়েছে শান্তির নিবাস-ছোট্র বাবুই পক্ষী।

সাগরে মিলেছে পদ্মা মেঘনা সাথে আছে ব্রহ্মপুত্র
নদী-নালা, খাল-বিলে সবচেয়ে সুন্দর এদেশের মানচিত্র,
সবুজে ঘেরা ফসলের মাঠে বাতাসেরা দোল খায়
পাকা ধানের ফিরনী যেন নবান্নতে শোভা পায়;
চিড়া-মুড়ি-গুড় রয়েছে সকালের নাস্তায়
আরো অনেক উৎসব আছে অপরূপ বাংলায়।
আম-জাম-কাঠাল-লিচুতে ভরা ফল বাগান
কোকিল তোমায় রোজ শুনাবে মনমাতানো গান;
তোমায় থাকলো নিমন্ত্রণ-
এসো সখী এসোগো তুমি
দেখে জুড়াবে মন-প্রান
পৃথিবীর মাঝে জান্নাত যেন আমার জন্মস্থান।।